1. admin@rangpurjournal.com : admin :
সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
লালমনিরহাট জেলাবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন- গোলাম মোস্তফা স্বপন পঞ্চগ্রাম ইউনিয়নবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন – চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক বসুনিয়া লালমনিরহাট সদর উপজেলাবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন – এরশাদুল করিম রাজু লালমনিরহাট সদর উপজেলাবাসীকে ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন- উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সুজন দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন – ফেরদৌসী বেগম বিউটি ঈদ উপলক্ষে পাটগ্রামে ২৭,৭২০ পরিবারের মধ্যে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ রংপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত রোযায় সাবধানে পথ চলি- ধ্রুবক রাজ নেতা মুজিব – ডাঃ মোঃ মাহাতাব উদ্দীন উপনির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে ইউপি চেয়ারম্যান থেকে পদত্যাগ করলেন শ্যামল

অনলাইনে ইনকামের লোভ দেখিয়ে রংপুর বিভাগে হাজারো মানুষ সর্বস্বান্ত কারিগর তিন জন- রংপুর জার্নাল

  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট, ২০২৩
  • ৯১ বার পঠিত

অনলাইনে ইনকামের লোভ দেখিয়ে রংপুর বিভাগে হাজারো মানুষ সর্বস্বান্ত কারিগর তিন জন- রংপুর জার্নাল

স্টাফ রিপোর্টার:

ডিজিটাল যুগে ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহারে মানুষের জীবনযাত্রা মান যেমন উন্নত হয়েছে, ঠিক তেমনি ডিজিটাল প্রতারণার শিকার হচ্ছে হাজারো মানুষ,
ইন্ডিয়ান সাইট, কানাডিয়ান সাইট,সহ বিভিন্ন দেশের সাইটে কিপ্টোকারেন্সি, ফরেক্স, এমএলএম ব্যবসায় টাকা ইনকামের বিভিন্ন ধরনের লোভ দেখিয়ে দেশের টাকা বিদেশে পাচার করা হচ্ছে,যার এজেন্ডা হিসেবে সাড়া দেশের শত শত লোক কমিশন নিয়ে কাজ করেছে।
সাইট গুলো মধ্যে ইন্ডিয়ান GROW WIN LIFE
ও কানাডিয়ান MTFE
রংপুর অঞ্চলে grow win life এর দায়িত্বে ছিলেন মাইদুল ইসলাম,আবু বক্কর,ও আবু বক্কর সিদ্দিক
এদের মূল কাজ ছিল খদ্দের খুজে বের করা,
আর তাদের টার্গেটে ছিল বেকার যুবকরা।
Grow win life এ ৪২৫০ টাকা ইনভেষ্ট করালে তারা কমিশন‌ পেতো ১৩৫০ টাকা,
হাজার হাজার বেকার ছেলেকে এই ফাঁদে ফেলে কোটি কোটি টাকা নিজের পকেটে ঢুকিয়ে কোটিপতি বনে গেছেন,মাস খানেক আগে grow win life হাজার হাজার কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা হয়ে যায়,
সকল গ্রাহক এদের চাপ দিলে তারা কিছু একটা করবে বলে জানান।
Grow win life এর ক্ষতি পোষাতে MTFE অ্যাপে পুনরায় ইনভেস্ট করায়।এবং মাস খানেকের মধ্যে এটাও উধাও হয়ে যায়।
এই চক্রের প্রতারনার শিকার সাকিব নামে এক যুবক জানান আবু বক্করের শসুর বাড়ি আমাদের এলাকার হওয়ায় তার সাথে পরিচয় হয়।এবং তিনি আমাকে প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশি সাইটে টাকা ইনভেষ্ট করায়, আমি আমার স্ত্রীর গহনা ও গরু বিক্রি করে দুই লক্ষ টাকা দেই,কিন্তু কিছু দিন পর তা উধাও হয়ে যায়,এখন আমি খুবই ক্ষতিগ্রস্ত,
সাকিবের মতোই একই এলাকার জাকির হোসেন,বজলুল করিম,রিপন,মিষ্টার সহ শতাধিক যুবক তাদের পাতানো ফাঁদে পা দিয়ে বিপদে পড়ে গেছে।

এই হোতার মূল কারিগর লালমনিরহাট ডায়াবেটিকস হাসপাতালের কর্মকর্তা মিলু সরকার যিনি রংপুর বিভাগ সহ সারা বাংলাদেশে এই ফাঁদের জাল পেতে ছিলেন,

এদিকে Mtfe তে ট্রেডের সময় ছিলো সোমবার থেকে শুক্রবার রাত ৭ থেকে রাত ১টা পর্যন্ত। সোম থেকে শুক্রবার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের ট্রেড হলেও সিইওদের জন্য লেনদেন হতো শনিবারসহ সপ্তাহে ৬ দিন। রবিবার বন্ধ থাকতো।
আর্থিক গোয়েন্দা প্রতিবেদনে অর্থপাচারের তথ্য
গত ১০ আগস্ট বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, অবৈধ অনলাইন গ্যাম্বলিং, গেমিং, বেটিং, ফরেক্স এবং ক্রিপ্টো ট্রেডিংয়ের মাধ্যমে দেশ থেকে অর্থপাচার হচ্ছে। আর্থিক গোয়েন্দা সংস্থা বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের (বিএফআইইউ) সঙ্গে সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার এক বৈঠকে এই চিত্র উঠে আসে। বৈঠকে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ, সিআইডি, স্পেশাল ব্রাঞ্চ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রান্সন্যাশনাল অ্যান্ড সাইবার ক্রাইম বিভাগ এবং গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ব্যাংক এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, আর্থিক খাতে ডিজিটাল পেমেন্ট এবং স্মার্ট পেমেন্টের প্রয়োগ বেড়েছে, যার সুফল ভোগ করছে পুরো বাংলাদেশ। তবে সুফল ও সমৃদ্ধির পাশাপাশি এসব ব্যাংকিং ও পেমেন্ট সিস্টেমের অপব্যবহারও বেড়েছে। অপরাধের মাধ্যমে সংঘটিত অবৈধ লেনদেন মাত্রাতিরিক্ত হারে বেড়েছে।

“ডিজিটাল পেমেন্ট সিস্টেমকে কাজে লাগিয়ে এসব অপরাধ হুন্ডি প্রক্রিয়াকে সহজ ও ত্বরান্বিত করছে। এর ফলে মুদ্রাপাচার বেড়ে যাচ্ছে এবং দেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। দেশ প্রচুর পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা হারাচ্ছে।”
এরই পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে অনলাইন বেটিং ও গ্যাম্বলিং সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

বক্কর, সিদ্দিক, মাইদুল ইসলামের পাতানো জালে পা দিয়ে সর্বশান্ত হওয়া সাকিব ইসলাম বলেন তারা আমাকে নিঃস্ব করেছে ,আমার আইনের আশ্রয় নেওয়া ছাড়া আর কোন উপায় নেই।
অ্যাডভোকেট রাশেদুল ইসলাম বলেন সাইবার ক্রাইম (Cyber crime) একটি অপরাধমূলক কার্যকলাপ যা কম্পিউটার এবং ইন্টারনেট ব্যবহার করে সংগঠিত হয়। সহজভাবে বলতে গেলে, তথ্যপ্রযুক্তি ও ইন্টারনেট ব্যবহার করে অনলাইনে যেসব অপরাধ সমূহ হয় তাই সাইবার অপরাধ
সাইবার অপরাধের মধ্যে রয়েছে হ্যাকিং, অনলাইন জালিয়াতি, ম্যালওয়্যার ছড়ানো, সাইবার বুলিং, অনলাইনে প্রতারণা ইত্যাদি।
তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইন, ২০০৬ (সংশোধিত ২০১৩) মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2022 Rangpur Journal
Theme Customized By Theme Park BD