1. admin@rangpurjournal.com : admin :
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:২৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রংপুর প্রেসক্লাব আয়োজিত মিডিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন টিসিএ – রংপুর জার্নাল স্টেপ আপ ফর টুমরো সংগঠনের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন পিজিয়ন ক্লাবের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন ফেন্সিডিলসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক – রংপুর জার্নাল হাতীবান্ধায় হেফজ বিভাগের ছাত্রদের মধ্যে টেবিল বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত স্থলবন্দর শ্রমিক লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত – রংপুর জার্নাল ফাগুন – শফিউজ্জামান আতা রংপুরে চালু হলো সিটি বাস সার্ভিস পাবনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ১৮০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার ২ রংপুরে ইউনিসেফ এবং সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে আন্তঃব্যক্তিক যোগাযোগ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

তিস্তা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৪ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৮ বার পঠিত

মো:সাকিব চৌধুরী,
রংপুর মহানগর প্রতিনিধি:

অতি ভারী বৃষ্টিপাত ও ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে তিস্তা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে বেশ কিছু এলাকার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। নদীর তীরবর্তী বাসিন্দারা ঘরবাড়ি ছেড়ে গবাদিপশু নিয়ে বাঁধে আশ্রয় নিয়েছেন। দুর্যোগ এড়াতে তিস্তা নদীর অববাহিকা, চর, দ্বীপচরে রেড এলার্ট জারি করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, সোমবার (১৪ আগস্ট) সকাল ৯টায় তিস্তা নদীর পানি ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ও কাউনিয়া পয়েন্টে ৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। একই সময়ে কুড়িগ্রামের ধরলা নদীর পানি কুড়িগ্রাম পয়েন্টে বিপদসীমার ৬৪ সেন্টিমিটার, তালুক শিমুলবাড়ি পয়েন্টে ১ দশমিক ৪ মিটার, দুধকুমার নদের পানি পাটেশ্বরী পয়েন্টে ৯০ সেন্টিমিটার, ব্রহ্মপুত্র নদের পানি নুনখাওয়া পয়েন্টে ৬৯ সেন্টিমিটার, চিলমারী পয়েন্টে ৫৮ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তিস্তার পানি বাড়ার কারণে রংপুরের কাউনিয়া, গঙ্গাচড়া ও পীরগাছার নদীর অববাহিকা ও চর, দ্বীপচরে পানি ঢুকে পড়েছে। চরের অনেক আমন ধানের ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে।

গঙ্গাচড়া উপজেলার লক্ষ্মীটারী ইউনিয়ন এলাকার কৃষক দুলাল হোসেন জানান, তিস্তার পানি বৃদ্ধিতে এবারে আমাদের ৫ বিঘা জমির ফসল নষ্ট হয়েছে। নদীতে ভেঙে গেছে অসংখ্য ফসলি জমি। বাড়িতেও পানি উঠেছে। রাতে বিছানায় পানি উঠেছে, ঘুমাতে পারি নাই।

গঙ্গাচড়া উপজেলার লক্ষ্মীটারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল হাদী বলেন, আমার ইউনিয়নের প্রায় সবগুলো ওয়ার্ড নদীবেষ্টিত। শংকরদহ, ইচলী, জয়রামওঝাসহ বিভিন্ন গ্রামে পানি ঢুকে পড়েছে। বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হলে দুর্গতদের জন্য আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম জানান, উজানে অতিভারী বৃষ্টির কারণে তিস্তাসহ অন্য নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত এ পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2022 Rangpur Journal
Theme Customized By Theme Park BD