1. admin@rangpurjournal.com : admin :
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রংপুর প্রেসক্লাব আয়োজিত মিডিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন টিসিএ – রংপুর জার্নাল স্টেপ আপ ফর টুমরো সংগঠনের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন পিজিয়ন ক্লাবের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন ফেন্সিডিলসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক – রংপুর জার্নাল হাতীবান্ধায় হেফজ বিভাগের ছাত্রদের মধ্যে টেবিল বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত স্থলবন্দর শ্রমিক লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত – রংপুর জার্নাল ফাগুন – শফিউজ্জামান আতা রংপুরে চালু হলো সিটি বাস সার্ভিস পাবনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ১৮০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার ২ রংপুরে ইউনিসেফ এবং সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে আন্তঃব্যক্তিক যোগাযোগ বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

  • আপডেট সময় : সোমবার, ৭ নভেম্বর, ২০২২
  • ৪২ বার পঠিত
হাতীবান্ধায় টি আর কাবিখার প্রকল্পের বরাদ্ধ নিয়ে অফিস ভাংচুর, হাতাহাতি
হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি ঃ

 

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় টিআর ও কাবিখা-কাবিটা প্রকল্পের ভাগাভাগি নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানের সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি, মারধর ও অফিস ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন নাহার আহত হয়েছে। সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ ভবনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, এ উপজেলায় দীর্ঘদিন ধরে টিআর ও কাবিখা-কাবিটার ভাগাভাগি নিয়ে জন প্রতিনিধিদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে।

২০২২-২৩ অর্থ বছরের টিআর ও কাবিখা-কাবিটার উপজেলা পরিষদের বরাদ্দ ২০ ভাগের ভাগাভাগি নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান মশিউর রহমান মামুনের অফিসে দুই ভাইস চেয়ারম্যানের সাথে তার বাকবিতন্ডা শুরু হয়।

এ সময় উপজেলা ভাইচ চেয়ারম্যান জেসমিন নাহার উপজেলা চেয়ারম্যানকে গালিগালাজ করতে থাকে।

এক পর্যায়ে উপজেলা চেয়ারম্যান অফিস ত্যাগ করে চলে যান। খবর পেয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের ছোট ভাই ও চাচাসহ তার লোকজন অফিসে এসে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন নাহারের অফিসে ভাঙচুর করেন এবং তাকে ও তার স্বামীকে মারধরও করেন এমন অভিযোগ জেসমিন নাহারের।

তবে এ ঘটনার জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান মশিউর রহমান মামুন ও ভাইচ চেয়ারম্যান জেসমিন নাহার একে অপরকে দায়ী করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলেন জানা যায়। তবে উপজেলা পরিষদের অপর ভাইচ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মিরু এ ঘটনার জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান মশিউর রহমান মামুনকে দায়ী করেছেন।

হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজির হোসেন জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইচ চেয়ারম্যানের মধ্যে যে ঘটনাটি ঘটেছে তা দুঃখজনক। এ বিষয়ে তারা যদি আইনী ব্যবস্থা নিয়ে থাকেন তাহলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2022 Rangpur Journal
Theme Customized By Theme Park BD