1. admin@rangpurjournal.com : admin :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০২:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পেলেন লালমনিরহাট জেলার পুলিশ সুপার রংপুর প্রেসক্লাব আয়োজিত মিডিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন টিসিএ – রংপুর জার্নাল স্টেপ আপ ফর টুমরো সংগঠনের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন পিজিয়ন ক্লাবের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন ফেন্সিডিলসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক – রংপুর জার্নাল হাতীবান্ধায় হেফজ বিভাগের ছাত্রদের মধ্যে টেবিল বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত স্থলবন্দর শ্রমিক লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত – রংপুর জার্নাল ফাগুন – শফিউজ্জামান আতা রংপুরে চালু হলো সিটি বাস সার্ভিস পাবনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ১৮০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার ২

যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় ঘরছাড়া গৃহবধূ

  • আপডেট সময় : রবিবার, ৩১ জুলাই, ২০২২
  • ১২৪ বার পঠিত

যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় ঘরছাড়া গৃহবধূ

 

মিনহাজ পারভেজ, পাটগ্রাম লালমনিরহাট॥

পাটগ্ৰামে যৌতুকের টাকা না পেয়ে এক মাস ধরে এক গৃহবধূকে ঘরছাড়া করে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূ তার স্বামী সুজন ইসলাম (২৬), শ্বশুর আতিউল্লা শ্বাশুড়ি ছামিনা বেগমকে অভিযুক্ত করে তাদের বিরুদ্ধে পাটগ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।ঘরছাড়া গৃহবধূ ইশরাত জাহান (২১) উপজেলার ঘোনাবাড়ী কদুর বাজার এলাকার বাসিন্দা ইয়াকুব আলীর মেয়ে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ২ বছর আগে ইশরাত জাহানের সঙ্গে একই উপজেলার হরিসভা এলাকার বাসিন্দা আতিউল্লার ছেলে সুজন ইসলামের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য চাপ শুরু হয় ইশরাতের উপর। একপর্যায়ে মেয়ের সুখের কথা ভেবে বিভিন্ন সময়ে সুজনকে ৪ লাখ টাকা দেয় তার পরিবার। পরবর্তীতে আবারো ১ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন সুজন। মেয়ের পরিবার টাকা দিতে অপারগতা জানালে এক পর্যায়ে স্ত্রী ও ছয় মাসের মেয়ে সন্তান সাফিয়া জান্নাতকে রেখে উপজেলার সাহেবডাঙ্গা রসুলগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা সোহেল ইসলামের মেয়ে আদনান তাজিন কে নিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমান সুজন।
অভিযোগ রয়েছে যৌতুকের টাকার জন্য বিভিন্ন সময়ে গৃহবধূর ইশরাত জাহানের উপর শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতো স্বামী সুজন।

ইশরাত জাহান জানান, বিয়ের পর থেকেই তাকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করা হয়। যৌতুকের জন্য চাপ দিলে টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে বেধড়ক মারধর করতো।

ইশরাত জাহানের বাবা জানান, মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে ৪ লক্ষ টাকা জামাইকে দেওয়া হয়। আমি কৃষি কাজ করি। জামাই কিছুদিন পরপর টাকা চায়। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় আমার মেয়েকে রেখে সে অন্য মেয়েকে বিয়ে করে।

এ ঘটনায় পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি ওমর ফারুক জানান, অভিযোগ পেয়েছি তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2022 Rangpur Journal
Theme Customized By Theme Park BD