1. admin@rangpurjournal.com : admin :
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৩:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পেলেন লালমনিরহাট জেলার পুলিশ সুপার রংপুর প্রেসক্লাব আয়োজিত মিডিয়া কাপের চ্যাম্পিয়ন টিসিএ – রংপুর জার্নাল স্টেপ আপ ফর টুমরো সংগঠনের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন পিজিয়ন ক্লাবের উদ্যোগে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন ফেন্সিডিলসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক – রংপুর জার্নাল হাতীবান্ধায় হেফজ বিভাগের ছাত্রদের মধ্যে টেবিল বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত স্থলবন্দর শ্রমিক লীগের অস্থায়ী কার্যালয়ের উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত – রংপুর জার্নাল ফাগুন – শফিউজ্জামান আতা রংপুরে চালু হলো সিটি বাস সার্ভিস পাবনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অভিযানে ১৮০ পিচ ইয়াবা সহ গ্রেফতার ২

হাতীবান্ধায় গাছে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন করলেন যুবলীগ নেতা

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৫ জুলাই, ২০২২
  • ১৪৮ বার পঠিত

হাতীবান্ধায় গাছে বেঁধে গৃহবধূকে নির্যাতন করলেন যুবলীগ নেতা

 

 

হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট) প্রতিনিধিঃ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গৃহবধু রেহানা আক্তারকে(৩৪) গাছে বেঁধে নির্যাতন ও তাদের থাকার একমাত্র বসতভিটেতে আগুন ধরিয়ে পুড়ে ছাই করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে যুবলীগ নেতা আহসান হাবিব মিলনের(৩৫) বিরুদ্ধে। নির্যাতনের সময় গৃহবধূকে এলোপাতাড়ি ভাবে কুপিয়ে যখম করা হয়।

এদিকে এ সময় ওই গৃহবধূকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তার ছেলে মোজাহিদ হোসেন(১৪) ও মেয়ে জুবাইদাকেও মারধর করা হয়। গুরুতর আহত ওই গৃহবধূ বর্তমান হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।

এ ঘটনায় সোমবার দুপুরে হাতীবান্ধায় থানায় ১০ জনের নাম উল্লেখ করে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন গৃহবধূর স্বামী জিয়ারুল হক। এর আগে গত শনিবাব(২ জুলাই) সকালে উপজেলার বড়খাতা গ্রামের ৪নং তহশিলদার পাড়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে।

অভিযুক্তরা হলেন, উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব মিলন(৩৫), সফিয়ার রহমান পিন্টু(৫৫), মনিরুজ্জামান(৫১), রবিউল ইসলাম(২৮), খতিবর রহমান(৩০), মামুনসহ(৩৫) আরও অনেকে।

জানা গেছে, জমি নিয়ে জিয়ারুলের সাথে তার ভাই পিন্টু ও মিলনের দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছে। এই বিরোধের জেরে গত শনিবার জিয়ারুল হকের বাড়িতে যুবলীগ নেতা মিলন ও তার ভাই পিন্টুসহ আরও কয়েকজন হামলা চালায়। এ সময় জিয়ারুল হকের স্ত্রী রেহেনা বাঁধা দিলে তাকে গাছের সাথে বেঁধে মারধর করে বসত ভিটেতে আগুন ধরিয়ে দেয় যুবলীগ নেতা মিলন। মাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে ছেলে ও মেয়েকেও মারধার করেন তারা। পওে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।

সোমবার বিকেলে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায় হাসপাতালের বেডে শুয়ে কাতরাচ্ছেন রেহেনা আক্তার। তার মাথায় দুটি সেলাই ও দু হাতে ১১টি সেলাই দেওয়া। এ সময় রেহেনা কান্না করতে করতে বলে, দেবর মিলন বাড়িতে এসে ঘরে আগুন লাগিয়ে দেয়। এ সময় আমি বাধা দিতে গেলে মিলনের হাতে থাকা চাকু দিয়ে আমার হাতে ও মাথায় কোপ দেয়। এমনকি আমার ভাসুর, দেবর ননদ ও ননদের ছেলে মিলে আমাকে বেধড়ক পেটাতে থাকে। পরে গাছের সাথে দড়ি দিয়ে বেধে নির্যাতন করে। আমাকে রক্ষা করতে আমার ছেলে মেয়ে ছুটে আসলে তাদেরকেও মারধর করে।

গৃহবধূ রেহেনা আক্তারের স্বামী জিয়ারুল হক কান্না করতে করতে বলেন, আমি বাড়িতে না থাকায় সেই সুযোগ বুঝে আমার বড় ভাই ছোট ভাই বোন মিলে আমার বউকে মারধর করে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। আমি কি বিচার পাবো না?

এ বিষয়ে জানতে বড়খাতা ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব মিলন বলেন, তাকে কোন মারধর করা হয়নি। এটা পারিবারিক বিষয়।

অভিযুক্ত সফিয়ার রহমান পিন্টু বলেন, আমরা তাকে মারধর করিনি সে নিজে নিজে হাত কেটে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নাঈম হাসান নয়ন বলেন, ওই গৃহবধূ হাসপাতালে ভর্তি আছেন। এছাড়া তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এরশাদুল আলম বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © 2022 Rangpur Journal
Theme Customized By Theme Park BD